কাউকে বাইরে দেখতে চাই না : আইজিপি

ডেস্ক রিপোর্ট

২৭

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে আগামী বুধবার থেকে সাত দিন সারা দেশে সর্বাত্মক লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। এতে চলাচলের ওপর কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। কিন্তু এই প্রাদুর্ভাবের মধ্যে যাদের জরুরিভিত্তিতে বাইরে যাওয়া প্রয়োজন, তাদের যাতায়াত নিশ্চিত করতে এবং মানুষের অনিয়ন্ত্রিত ও অপ্রয়োজনীয় চলাচল রোধ করতে ‘মুভমেন্ট পাস’ এর ব্যবস্থা করছে পুলিশ। এই ‘মুভমেন্ট পাসধারী ব্যক্তিরা ঢাকার ভেতরে এবং বাইরে-যেকোনো সড়কে নির্বিঘ্নে চলাচল করতে পারবেন। তবে, এই পাস দরকার হবে না সাংবাদিক ও সংবাদকর্মীদের।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে রাজারবাগ পুলিশ লাইনে ‘মুভমেন্ট পাস’ উদ্বোধনকালে এ কথা জানান পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ। তিনি বলেন, ‘যাদের একান্তই বাইরে যাওয়া প্রয়োজন হবে, তাদের জন্য মুভমেন্ট পাসের ব্যবস্থা করেছে বাংলাদেশ পুলিশ। এক স্থান থেকে অন্যস্থানে যাতায়াতের জন্য অফিশিয়াল কিংবা জরুরি প্রয়োজনে ‘মুভমেন্ট পাস’ নেওয়া লাগবে। তবে এ ক্ষেত্রে সাংবাদিকদের এই পাস নেওয়া লাগবে না।’

আইজিপি বলেন, ‘আমরা আগামীকাল কাউকে সড়ক-রাস্তাঘাট এবং বাইরে দেখতে চাই না। বিনা প্রয়োজনে কাউকে দেখতে চাই না। আমরা চাপপ্রয়োগের চেয়ে নিজেদের উদ্যোগেই এই দায়িত্ব পালন করব। এসব না মানলে সমগ্র বাংলাদেশকে আইসোলেশনে নিতে হবে। সীমিত কারণে বের হওয়া লাগতে পারে। তারা মুভমেন্ট পাস নেবেন। রাস্তাঘাটে কোনো আড্ডা দেবেন না। বিভিন্ন সড়কে, মোড়ে আড্ডা দেবেন না। দায়িত্বশীল নাগরিক হিসেবে তরুণরা কেউ বের হবেন না। বের হতে হলে অবশ্যই দ্রুত ঘরে ফিরতে হবে।’

ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘গতবছর যেভাবে নিয়ন্ত্রণ করেছি, এবারও দ্বিতীয় ওয়েভ নিয়ন্ত্রণ করব। তবে অবশ্যই অপ্রয়োজনীয় চলাফেরা বন্ধ করতে হবে। গতবছর লাখ লাখ মানুষ ঢাকা ছেড়েছেন। এবারো গত দুদিন ধরে ঢাকা ছাড়ছেন, এগুলো ঠিক না। এগুলো নৈতিকভাবে খুবই অন্যায় কাজ। গতকাল বিভিন্নভাবে যারা যেখানে পৌঁছেছেন, তারা সেখানেই থাকবেন। গ্রামবাসীকে বলব, লক্ষ্য রাখবেন, যদি আক্রান্ত কেউ থাকেন, তাহলে সে গ্রামের অন্যকেও আক্রান্ত করবে। তারা সাতদিন ঘরে থাকবেন। সরকার যেভাবে বলছে সেভাবে নির্দেশ মানবেন।’

গাড়ি বের করার ব্যপারে নিরুৎসাহী করে আইজিপি বলেন, অবশ্যই মুভমেন্ট পাস নেবেন। পুলিশকে সবাই সহযোগিতা করবেন।

করোনা পরিস্থিতিতে সবাইকে সচেতনতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের বিষয়ে আইজিপি বলেন, ‘সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। আমরা কোনো প্রাণহানি চাই না। বর্তমান পরিস্থিতি থেকে উত্তোরণের প্রধান উপায় হচ্ছে ব্যক্তিগত সচেতনতা। আমাদের অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে। তা ছাড়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা, হাত ধোয়া। এসব বিধি আমাদের মনোযোগ ও আন্তরিকতা দিয়ে মানতে হবে।’

পাশের জন্য আবেদনের নিয়ম হলো আবেদনকারীকে- movementpass.police.gov.bd-এই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে পাস এর জন্য আবেদন করতে হবে;. শুরুতে একটি সক্রিয় মোবাইল ফোন নম্বর দিতে হবে। আবেদনকারী কোথা থেকে কোথায় যাবেন, তা জানতে চাওয়া হবে। সঙ্গে সেই তথ্য প্রদান করতে হবে।

এরপর একটি নির্দিষ্ট ফর্মে আবেদনকারীর নিকট থেকে কিছু তথ্য চাওয়া হবে। সেইসব তথ্য ধাপে ধাপে প্রদান করতে হবে। এরপর আপনার একটি ছবি আপলোড করে ফর্মটি জমা দিতে হবে; জমা দেওয়া ফর্মে আবেদনকারীর প্রদত্ত তথ্যাবলীর ভিত্তিতে মুভমেন্ট পাস ইস্যু করা হবে। ওয়েব সাইট থেকেই পাসটি ডাউনলোড করে সংগ্রহ করা যাবে; চলাচলের সময় কর্তব্যরত পুলিশ অফিসারকে পাসটি প্রদর্শন করতে হবে।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.