ভারতে টানা ৬ দিন তিন লক্ষাধিক রোগী শনাক্ত

ডেস্ক রিপোর্ট

ভারতে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি সময়ের সঙ্গে সঙ্গে আরো খারাপ হচ্ছে। গত সোমবারও দেশটিতে প্রায় ৩ লাখ ২০ হাজার নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে টানা ষষ্ঠদিন সেখানে তিন লাখেরও বেশি মানুষ নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হলেন। শুধু আক্রান্তর রেকর্ডই নয়, ভয় জাগাচ্ছে মৃতের সংখ্যাও। বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশটিতে টানা সপ্তমদিন দুই হাজারের বেশি মানুষ করোনায় মারা গেছেন।

পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যমতে, ভারতে গত সোমবার নতুন করে ৩ লাখ ১৯ হাজার ৪৩৫ জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন। এসময়ে মারা গেছেন ২ হাজার ৭৬৪ জন। এ নিয়ে দেশটিতে মোট করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১ কোটি ৭৬ লাখ ২৫ হাজার ৭৩৫ জন। মোট মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৯৭ হাজার ৮৮০ জনের।

এর আগে, গত ২১ এপ্রিল বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে একদিনে তিন লক্ষাধিক রোগী শনাক্তের ভয়ংকর রেকর্ড গড়েছিল ভারত। সেই ধারা বজায় রেখে গত ২৬ এপ্রিল প্রথম সাড়ে তিন লাখ রোগী শনাক্তের রেকর্ডও নিজেদের করে নেয় তারা। তবে এর পরের দিন আক্রান্তের সংখ্যা কিছুটা কমলেও তা তিন লাখের ওপরেই রয়েছে।

মঙ্গলবার টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ভারতে করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে এপ্রিল হয়ে উঠেছে এযাবৎ সবচেয়ে প্রাণঘাতী মাস। এর মধ্যে গোটা মাসের অর্ধেক মৃত্যুই হয়েছে শেষ এক সপ্তাহে।

সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, চলতি মাসে ভারতে অন্তত ৩৪ হাজার ৫৯৫ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন, এর মধ্যে গত এক সপ্তাহে যোগ হয়েছেন ১৭ হাজার ৩৩৩ জন।

দেশটিতে এর আগে একমাসে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড ছিল ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে ৩৩ হাজার ২৩০ জনের। ফলে এপ্রিল শেষ হওয়ার এখনও কিছুদিন বাকি থাকায় এ মাসে মৃত্যুর পাহাড় আরও বড় হবে বলে ধরে নেয়া যায়।

আচমকা মৃত্যুহার বৃদ্ধিও শঙ্কার অন্যতম কারণ। মাত্র একমাস আগে মার্চে ভারতজুড়ে করোনায় প্রাণহানি ছিল ৫ হাজার ৬৫৬ জনের। সেখানে এপ্রিলে এর সংখ্যা অন্তত ছয়গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.