প্রতি রাতেই যাদুকাটা নদীর তীর কেটে বালু পাথর উত্তোলন ও বিক্রি ২টি নৌকা আটক

তাহিরপুর প্রতিনিধি

২৩

সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলার সীমান্ত নদী যাদুকাটায় প্রতি রাতেই অবৈধভাবে বালু-পাথর উত্তোলন করে। পরে রাতের বেলায় নৌকায় লোডকরে রক্তি নদী দিয়ে নিয়ে সময় বালু ভর্তি ১টি স্টিল বডি নৌকা ও একটি কাটের নৌকা আটক করেছে তাহিরপুর থানা পুলিশ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক রক্তি নদী তীরবর্তী আনোয়ারপুর গ্রামের বাসিন্দারা জানান, প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে প্রতি রাতেই ১০ থেকে ১২টি বালুভর্তি ষ্টিলবডি নৌকা যাদুকাটা নদী থেকে বালু উত্তোালন করে রক্তি নদীর ব্রীজ আনোয়ারপুর সেতুর নীচ দিয়ে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে চলে যায়।

আনোয়ারপুর বাজারের ব্যবসায়ী মিলন তালুকদার জানান,বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় যাদুকাটা নদীতে টহল পুলিশ এলে দুটি নৌকা তারা আটক করেন। এ সময় আরো ৮/১০ টি নৌকা ইঞ্জিন চালিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়।

পরিবেশ ও হাওর উন্নয়ন সংস্থার সাধারন সম্পাদক পিযুষ পুরকায়স্থ টিটু বলেন,সারা দেশে ইজারা বহির্ভূত কোন মহালে বালু পাথর উত্তোলন করা যাবে না মর্মে সরকারি কঠোর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এ অবস্থায় যাদুকাটা নদী থেকে প্রতিরাতেই ১০/১২টি বালুর নৌকা কিভাবে নদী দিয়ে পরিবহন করে বিষয়টি তাহার নিকট বোধগম্য নয় বলেও তিনি জানান।

বালিজুড়ি ইউনিয়নে দায়িত্বরত তাহিরপুর থানার এসআই আলমাছ মিয়া বলেন, রক্তি নদী থেকে বালুভর্তি একটি ষ্টিলবডি নৌকা ও একটি কাট বডি নৌকা আটক করা হয়েছে। এসময় আরো ৭/৮টি নৌকা ইঞ্জিন চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।

তাহিরপুর থানা অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুল লতিফ তরফদার বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে থানা পুলিশ বালু বোঝাইকৃত একটি স্টীল নৌকা আটক করে।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.