কিডনি রোগে আক্রান্ত ছেলের জন্য দোয়া চাইলেন সাংবাদিক পিতা

১০০

সাংবাদিক জিন্নার ছেলে মোঃ সানবিম আহমেদ সাফল্যের অসুস্থতার কথা ফেসবুকের মাধ্যমে জানতে পেরে চিকিৎসার দায়িত্ব নেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদের ছেলে প্রভাষক রাকিবুজ্জামান আহমেদ।

সোমবার দুপুরে ৫০ হাজার টাকার একটি চেক সাংবাদিক জিন্নার ইসলামী ব্যাংকের এ্যাকাউন্টে জমা দেন তিনি। জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না পেশায় সাংবাদিক। তিনি দেশের বহুল প্রচারিত দৈনিক প্রতিদিনের সংবাদ ও দৈনিক বায়ান্নর আলো পত্রিকার লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধির দায়িত্বে আছেন।

সাংবাদিক জিন্নাতুল ইসলাম বলেন, সঞ্চিত সব অর্থ ছেলের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতেই শেষ। তার চিকিৎসা ব্যয় দৈনিক ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা। সব খুইয়ে শেষ পর্যন্ত ঋণ করে ছেলের চিকিৎসা চালিয়ে যাচ্ছি। এখন আমার অবশিষ্ট বলতে কিছুই নেই। তারপরেও ছেলের সুস্থতা কামনা করে সকলের নিকট দোয়া প্রার্থনা করেন।

তিনি আরো বলেন, ছেলের সুস্থতার জন্য দোয়া চেয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট দিলে সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদের ছেলে রাকিবুজ্জামান আহমেদ হঠাৎ আমাকে কল করেন। তিনি আমার ছেলের খোঁজ নিয়েছে এবং আমার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ৫০ হাজার টাকার একটি চেক পাঠিয়ে দেন।

সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদের ছেলে প্রভাষক রাকিবুজ্জামান আহমেদ বলেন, আমি সাংবাদিক জিন্নার স্কুল পড়ুয়া ছেলে সাফল্যের সুস্থতা কামনা করি সেই সাথে সামর্থ্য অনুযায়ী আমি চিকিৎসার জন্য সামান্য সহযোগিতা করেছি মাত্র। মহান আল্লাহপাক তাকে যতদিন বেঁচে রাখবেন এভাবেই অসহায় মানুষের পাশে থাকবেেন।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.