নোয়াখালীতে করোনায় আরো ৩ জনের মৃত্যু, নতুন করে শনাক্ত ১২৮

 নোয়াখালী প্রতিনিধি:

৫৩

নোয়াখালীতে দিন দিন বেড়ে চলেছে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ। গত ২৪ঘন্টায় জেলায় নতুন করে আরও ১২৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ৪৪২ জনের নমুনা পরীক্ষায় এ ফল পাওয়া যায়।

এতে ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ২৮ দশমিক ৯৬শতাংশ। জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরো ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এতে জেলায় মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে দশ হাজার ৮১৩ জন। মোট আক্রান্তের হার ১১ দশমিক ১৭ শতাংশ। এ নিয়ে জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৩৫ জনে। মৃত্যুর হার ১দশমিক

২৫শতাংশ। এর মধ্যে সদর উপজেলায় মারা যায় ২৬জন, সুবর্ণচরে ২জন,বেগমগঞ্জ-৪৭জন,সোনাইমুড়ীতে ৮জন,চাটখিল ১৩জন, সেনবাগ-১৭জন, কোম্পানীগঞ্জ-৪জন, কবিরহাট ১৮জন।

শনিবার ( ২৬জুন) সকালে জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোঃ মাসুম ইফতেখার বিষয়টি নিশ্চিত করে। এর আগে শুক্রবার রাত ১২টায় জেলা সিভিল সার্জনের কার্যালয় এই সব তথ্য তাদের ফেইসবুক অ্যাকাউন্টেও প্রকাশ করে।

ডা.মাসুম ইফতেখার জানান, নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ৫৪ জন সদর উপজেলার, সুবর্ণচরে তিনজন, হাতিয়া দুইজন, বেগমগঞ্জে ১৯জন, সোনাইমুড়ীর ৮জন, চাটখিলের দুইজন, সেনবাগ চারজন, কোম্পানীগঞ্জের তেইশ জন ও কবিরহাটের ১৩জন রয়েছেন।

তিনি আরও জানান, এছাড়া সুস্থ হয়েছেন ৭ হাজার ৪১০ জন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৬৮ দশমিক ৫৩শতাংশ।
এদিকে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা তিন হাজার ২৬৮জন।

কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালে (শহীদ ভুলু স্টেডিয়াম) ভর্তি রয়েছেন ৪৬ জন ও আইসোলেশনে রয়েছেন ১৫জন।
উল্লেখ্য, নোয়াখালীতে করোনার প্রকোপ না কমায় নোয়াখালী পৌরসভা ও ছয়টি ইউনিয়নে চলমান লকডাউন আরও এক সপ্তাহ বাড়িয়েছে জেলা প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) বিকেল ৫টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সাথে সাথে চৌমুহনী পৌরসভা এবং বেগমগঞ্জের মীর ওয়ারিশপুর ও একলাশপুর ইউনিয়নে লডডাউন ঘোষণা করা হয়।

 

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.