আশুলিয়ায় ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় স্কুলের জমি দখলের অভিযোগ

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ

৫১

আশুলিয়ার নরশিংহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জমি দখল করে ইট দিয়ে পাকা ঘর উঠানোর অভিযোগ ইয়ারপুর ইউনিয়ন ৬নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য আবু তাহের মৃধার বিরুদ্ধে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়ঃ আবু তাহের মৃধা উক্ত স্কুলের সভাপতি, সেই সাথে ইউপি সদস্য এজন্য স্কুলের প্রধান শিক্ষক বা উক্ত স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির কাউকেই কিছু না বলে তার একক ক্ষমতায় স্কুলের জমিতে ঘর তৈরী করছেন বলে অভিযোগ জমি দাতা ও স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মোঃ মান্নান ভূইয়ার।

তিনি জানান আবু তাহের মৃধা একজন ঘাড়তেড়া প্রকৃতির লোক। তিনি কাউকেই তোয়াক্কা করেন না। আমি এজন্য তাকে কিছু না বলে এবিষয়টি শোনার পর উক্ত স্কুলের প্রধান শিক্ষক আমজাদ হোসেন কে অবগত করেছি।
, তিনিও এঘর উঠানোর বিষয়ে কিছুই জানেন না বলে আমাকে জানান, এবং এবিষয়ে সাভার উপজেলা শিক্ষা অফিসারের সাথে কথা বলবেন বলেও জানিয়েছেন তিনি ।

এব্যপারে স্কুলের প্রধান শিক্ষক আমজাদ হোসেন এর সাথে কথা বললে তিনি বলেন আমি এবিষয়ে জানতাম না আমাকে বিষয় টি জমি দাতা ও স্কুল কমিটির সদস্য মোঃ মান্নান ভূইয়া জানানোর পর, আমি সাভার উপজেলা শিক্ষা অফিসারের সাথে কথা বলেছি। তিনি বিষয়টি দেখবেন বলে আমাকে জানান।

বিষয়টি জানার পর ১০/০৭/২০২১ ইং তারিখ সরজমিনে গেলে দেখা যায় ইট দিয়ে তৈরী হচ্ছে দুইটি পাকা ঘর।
এবিষয়ে জানতে চাইলে তাবশিরা ইসলাম লিজা সাভার উপজেলা শিক্ষা অফিসার গণকন্ঠ কে জানান আমি এবিষয়ে জানার পর উক্ত স্থানে ঘর নির্মাণের জন্য নিষেধ করেছি।

উপরোক্ত বিষয়ে কাউকে না জানিয়ে কিভাবে প্রতিষ্ঠান তৈরী করছেন জানতে চাইলে আবু তাহের মৃধা, ইয়ারপুর ইউনিয়ন ৬নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য ও নরশিংহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি বলেন, এলাকার পোলাপান এলাকায় মাদক সেবন সহ নানাবিধ অপরাধ মুলক কর্মকান্ড করে।

সেই কারনে এখানে একটি বঙ্গবন্ধু পাঠাগার ও লাইব্রেরী তৈরীর জন্য ঘর উঠাচ্ছি। এব্যপারে আমি উপজেলা শিক্ষা অফিসারের সাথে কথা বলেছি। উদ্বোধনের দিন আপনাদের দাওয়াত দেওয়া হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি জানান, আবু তাহের মৃধা, এই স্কুলের দাতা সদস্যোর জমিও দখল করেছে, তার রয়েছে একদল কিশোর গাং সন্রাস বাহিনী, এদের ভয়ে মুখ খুলতে পারেনা কেউ, তিনি নির্বাচন করার আগে নির্বাচন কমিশনে কত সম্পদের হিসাব দিয়েছিলো, এবং বর্তমানে তার কত অর্থ সম্পদ আছে তার হিসাব নিলেই বেরিয়ে আসবে থলের বিড়াল।

এলাকা বাসী জানানঃ এখানে পাঠাগার ও লাইব্রেরি তৈরী হবে এ বিষয়ে জানেন না, প্রধান শিক্ষক,ম্যানেজিং কমিটির সদস্য বা সাভার উপজেলা শিক্ষা অফিসার, সেখানে আদৌ কি পাঠাগার ও লাইব্রেরী তৈরী হবে না নিজস্ব রাজত্ব করার প্রতিষ্ঠান হবে।

এবিষয়ে জানিনা তবে আবু তাহের মৃধা একজন খারাপ প্রকৃতির লোক, তিনি বাঁচার জন্য নিজের দোষ অন্যের ঘাড়ে চাপিয়ে এলাকার বিভিন্ন ছেলেদের ফাঁসিয়ে মামলায় জরানো সহ বিভিন্ন অপরাধ মুলক কর্মকান্ড করে বেড়াচ্ছে। আবু তাহের মৃধা ইউপি সদস্য হওয়ার পর থেকে তার নেত্রীতে এলাকায় অবৈধ গ্যাস সংযোগ সহ, জমি দখলের অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে ।

বর্তমানে তিনি বিপুল অর্থ সম্পদের মালিক । এজন্য এলাকার কাউকেই তোয়াক্কা করছেন না তিনি। বিষয় টি স্থানীয় প্রশাসন খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জোর দাবীও জানিয়েছেন এলাকাবাসী ।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.