সুনামগঞ্জে সতীনের মেয়েকে ধর্ষন: সৎ মা গ্রেফতার

 সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

২৮

সুনামগঞ্জে সতীনের স্কুল পড়–য়া মেয়েকে ধর্ষনের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় সৎ মাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তার নাম- জুনু বেগম (৩৫)।

তিনি জেলার সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের ইব্রাহিমপুর সদরগড় গ্রামের সিরাজ মিয়ার ২য় স্ত্রী। আজ সোমবার (১৯ জুলাই) সন্ধ্যায় আদালতের মাধ্যমে সৎ মাকে কারাঘারে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে- গতকাল রোববার (১৮ জুলাই) রাত ১১টায় জেলার ছাতক উপজেলার কালারুখা ইউনিয়নের বোবরাপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে সৎ মা জুনু বেগমকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ওই সময় সৎ মা জুনু বেগমকে পুলিশের হাত থেকে ছিনতাই করার চেষ্টা চালায় পরকিয়া প্রেমিক ও তার বাহিনীর সদস্যরা।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (৩ জুন) দুপুরে সৎ মা জুনু বেগম তার স্বামী সিরাজ মিয়াকে চায়ের সাথে নেশা পান করিয়ে অজ্ঞান করে তার স্কুল পড়–য়া মেয়েকে জোরপূর্বক সুনামগঞ্জ থেকে সিলেটে নিয়ে যায়।

এরপর ঐদিন রাত ১২টায় সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ সংলগ্ন মা আবাসিক হোটেলের ৩য় তলার একটি কক্ষে সৎ মা জুনু বেগমের পরকিয়া প্রেমিক মাহমদ আলীকে দিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষন করায়।

এঘটনার প্রেক্ষিতে ধষিতা কিশোরীর খালা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন সংশোধন আইন ২০২০ এর ৭,৯ (১) ও ৩০ধারায় সুনামগঞ্জ আদালতে মামলা নং ১৯৪/২০২১ দায়ের করেন। পরে বিজ্ঞ আদালত এই মামলাটি এফআইআর করে তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সুনামগঞ্জ সদর থানার পুলিশকে নির্দেশ দেন।

এই মামলায় জেলার ছাতক থানার কালারুখা ইউনিয়নের বোবরাপুর গ্রামের আছমত আলীর লম্পট ছেলে মাহমদ আলী (৩৫) ও একই গ্রামের মৃত মুসলিম আলীর মেয়ে সৎ মা জুনু বেগম (৩৫)সহ তাদের কয়েকজন সহযোগীকে আসামী করা হয়।

সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মোঃ সহিদুর রহমান এঘটনা সত্যতা নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের বলেন- স্কুলছাত্রী ধর্ষন মামলার আসামী সৎ মা জুনু বেগমকে কারাঘারে পাঠানো হয়েছে। এই মামলার অন্য আসামীদেরকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.