সুনামগঞ্জে আদিবাসী নারীসহ ২জনের মৃত্যু

সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:

৩৩

মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া,সুনামগঞ্জে পারিবারিক কলহের জের ধরে আদিবাসী নারীসহ ২জনের মৃত্যু হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

মৃত ব্যক্তিরা হলেন- জেলার মধ্যনগর উপজেলার উত্তর বংশীকুন্ডা ইউনিয়নের গুলগাঁও গ্রামের সত্যলাল বৈরাগীর স্ত্রী বেলী রানী হাজং (২৬) ও বিশ^ম্ভরপুর উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের অনন্তপুর গ্রামের রাজা মিয়ার ছেলে মাসুক মিয়া (২৪)।

গতকাল সোমবার (২০ সেপ্টেম্ভর) রাতে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে- জেলার মধ্যনগর উপজেলা সীমান্তের গুলগাঁও গ্রামের বাসিন্দা কষক সত্যলাল বৈরাগীর সাথে তার স্ত্রী বেলী রানী হাজং এর বনিবনা হচ্ছিলনা। তাদের মাঝে দীর্ঘদিন যাবত দ্বন্দ চলছিল।

গতকাল সোমবার দুপুরে পারিবারিক কলহের জের ধরে তাদের মাঝে ঝগড়া হয়। তারই জের ধরে সন্ধ্যায় গৃহবধু বেলী রানী হাজং নিজ বসতঘরের ধরনার মাঝে গলায় ওরনা পেচিয়ে আত্মহত্যা করে।

আর এঘটনাটি এলাকার লোকজন জানতে পেয়ে থানায় খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আদিবাসী গৃহবধুর লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। অপরদিকে চালক মাসকু মিয়া ১জন যাত্রী নিয়ে মোটর সাইকেল যোগে বিশ^ম্ভরপুর

থেকে তাহিরপুর যাওয়ার সময় গতকাল সোমবার (২০ সেপ্টেম্ভর) সন্ধ্যায় তাহিরপুর-সুনামগঞ্জ সড়কের আনোয়ারপুর নামক এলাকায় দূঘর্টনার শিকার হয়ে গুরুত্বর আহত হয়।

পরে এলাকার লোকজন ২জনকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে বিশ^ম্ভরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসকরা মোটর সাইকেল চালক মাসুক মিয়াকে মৃত বলে ঘোষনা করেন। আর আহত যাত্রী শাহরিন মিয়াকে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

বিশ^ম্ভরপুর থানার ওসি মোঃ ইকবাল হোসেন ও মধ্যনগর থানার এসআই অনিক চন্দ্র দেব সাংবাদিকদের পৃথক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

 

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.