সুনামগঞ্জে গৃহবধু হত্যা মামলায় স্বামী শুশু ও দেবর সহ ৭ জন কারাঘারে

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:

৬৯

মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া:সুনামগঞ্জে গৃহবধু হত্যা মামলায় স্বামী, শুশুর  ও ৩ দেবরসহ মোট ৭জনকে কারাঘারে পাঠিয়েছে আদালত।

তারা হলেন- জেলার শাল্লা উপজেলার আটগাঁও ইউনিয়নের উজান ইয়ারাবাদ গ্রামের শ^শুর আব্দুল খালেক, স্বামী রাজ মিয়া, দেবর সাজু মিয়া, সুহেল মিয়া, মাজু মিয়া ও তাদের আত্মীয় আব্দুল মনাফের ছেলে মোহন মিয়া ও রিপন মিয়া।

গতকাল রবিবার (৩১ অক্টোবর) সন্ধ্যায় তাদেরকে সুনামগঞ্জ জেলা কারাঘারে পাঠানো হয়েছে। এরআগে বিকেলে সুনামগঞ্জ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আব্দুর রহিমের আদালেত হাজির হয়ে ৭ আসামী জামিনের জন্য আবেদন করে।

পরে দীর্ঘ শুনানি শেষে সন্ধ্যায় তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাঘারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালতের বিজ্ঞ বিচারক। তবে এই হত্যা মামলার দুই নারী আসামী কমরুননেছা ও আকলিমা বেগম বর্তমানে পলাতক রয়েছে।

আদালত সূত্রে জানা গেছে- গত বছরের জানুয়ারি মাসে জেলার শাল্লা উপজেলার আটগাঁও ইউনিয়নের উজান ইয়ারাবাদ গ্রামের গৃহবধু রুনা বেগমকে যৌতুকের জন্য তার স্বামী রাজ মিয়া ও পরিবারের লোকজন পিটিয়ে হত্যা করে লাশ গুম করার চেষ্টা করে।

পরে থানায় মামলা করতে গেলে মামলা নেয়নি পুলিশ। অবশেষে কোন উপায় না পেয়ে গৃহবধু রুনা বেগমের ভাই শাহরিয়ার আলম বাদী হয়ে সুনামগঞ্জ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বাদীপক্ষের আইনজীবি হুমায়ুন কবির সাংবাদিকদের বলেন, চা ল্যকর রুনা বেগম হত্যা মামলায় শ^শুর, স্বামী ও দেবরসহ ৭ আসামী আদালতে আত্মসমর্পন করে জামিন প্রার্থনা করলে শুনানী শেষে তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাঘারে পাঠানো নির্দেশ দেন বিজ্ঞ বিচারক।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.