সুনামগঞ্জে তালই সম্বোধন নিয়ে সংঘর্ষে নারীসহ আহত ৩০

মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া

৫২

সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের পল্লীতে তালই সম্বোধন নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে প্রায় ঘন্টাব্যাপী রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনায় নারীসহ ৩০জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় ধরনী বিশ্বাস, রেনু বিশ্বাস, শান্তনা বিশ্বাস, রেখা দেবনাথ, বিজয়া দেবী, রুহিনী দেবী, সুচিত্রা দেবী, জীতেশ বিশ্বাস, স্বপন বিশ্বাস, রাজন বিশ্বাস, সাজন বিশ,

দিবিন্দ বিশ্বাস,নিরঞ্জন বিশ্বাস , সাগর বিশ্বাস কাজলবিশ্বাস, জগবন্ধু দেবনাথ, রতিন্দ্র দেবনাথ, বাবুল দেবনাথ, বিপুল দেবনাথ, বনমালি দেবনাথ, প্রদীপ দেবনাথ, শ্যামল দেবনাথ,

কান্ত দেবনাথকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যান্য আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। আজ রবিবার (৫ ডিসেম্ভর) সকাল অনুমান সাড়ে ৯টায় এই সংঘর্ষের

ঘটনাটি ঘঠে।পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে- প্রায় ৬মাস আগে জেলার দিরাই উপজেলার করিমপুর ইউনিয়নের পুরাতন কর্ণগাঁও গ্রামের লাল মোহন বিশ্বাসসের ছেলে রাজন বিশ্বাস ও একই গ্রামের শসাঙ্গ দেবনাথের মেয়ে শান্তনা দেবনাথ পরিবারের অমতে পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করে।

এ ঘটনার প্রেক্ষিতে শান্তনা দেবনাথের পরিবার বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করলে রাজন বিশ্বাসসকে পুলিশ গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠায়। প্রায় দেড়মাস কারাভোগের পর জামিনে মুক্তিপায় রাজন বিশ্বাস।

কিন্তু শান্তনা দেবনাথ তার স্বামীকে ছেড়ে যায়নি। এমতাবস্থায় গতকাল শনিবার (৪ ডিসেম্বর) রাত অনুমান ১০টায় রাজনের ভাই সাজন বিশ্বাস তার ভাবী শান্তনা দেবনাথের চাচা নীরেশ দেবনাথকে তালই বলে সম্বোধন করে।

এ ঘটনার প্রেক্ষিতে চাচা নীরেশ দেবনাথ ক্ষিপ্ত হয়ে হাতাহাতিতে লিপ্ত হয়। ওই সময় এলাকার উপস্থিত গন্যমান্য লোকজন তাদের দুজনের বিষয়টি তাৎক্ষনিক ভাবে সমাধান করে দেন।

কিন্তু তারই জের ধরে আজ রবিবার (৫ ডিসেম্ভর) সকাল সাড়ে ৯টায় কর্ণগাঁও গ্রামের মাঠে দুই পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে একপক্ষ অন্যপক্ষকে ডাকাডাকি করে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

প্রায় ঘন্টাব্যাপী ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ইটপাথর নিক্ষেপসহ দেশীয় অস্ত্রের আঘাতে ১০জন নারীসহ উভয়পক্ষের কমপক্ষে ৩০জন আহত হয়েছে বলে জানাগেছে।

সংঘর্ঘের খরব পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে সংঘর্ষের পর থেকে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করেছে।

এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে দিরাই থানার ওসি তদন্ত আকরাম আলী সাংবাদিকদের বলেন- ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে, এব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.