সেনবাগে শরীরে আগুন লাগিয়ে ভয় দেখাতে গিয়ে এক হিজড়া দগ্ধ

সেনবাগ ( নোয়াখালী( প্রতিনিধি

৩০২

মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার ৪ নং কাদরা ইউনিয়নের নিজসেনবাগ মধ্যপাড়া রাজ্জাক পুলিশের বাড়িতে নবজাতক জন্মের পর দুই হিজড়া ওই বাড়িতে গিয়ে ৫ হাজার টাকা দাবী করে।

কিন্তু তাদের দাবীকৃত ওই টাকা আদায়ে ব্যার্থ হয়ে নিজের শরীরে আগুন লাগিয়ে ভয় দেখাকে গিয়ে চুমকী (২৫) নামের এক হিজড়া দগ্ধ হয়েছে। ওই ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার( ১৬ মার্চ) দুপুরে।

এঘটনায় আহত হিজড়াকে তার সহযোগীর উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের ভর্তি করান। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে ডাক্তার হিজড়া চুমকীকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ

হাসপাতালে বার্ন ইউনিটে রেপার করলে তারা ওই হাসপাতালে না গিয়ে শুক্রবার সকালে সেনবাগ থানায় এসে প্রতিকার চাইলে বিষয়টি জানাজানি হয়।

এরপর সেনবাগ থানার ওসি তদন্ত এমদাদুল হকের নেতৃত্ব সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স ঘটনাস্থলে পৌছে ওই বাড়ির দুই নারী ও এক পুরুষকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য আটক করে থানায নিয়ে আসে।

আটক জহিরুল ইসলাম নয়ন(২৮) ও তার পিতা মুজিবুল হক জানায় গত ১১ মার্চ শুক্রবার দুপুরে জহিরুল ইসলামের স্ত্রী একটি কন্যা সন্তান জন্মদেয়।

এরপর বুধবার ১৬ মার্চ হিজড়া চুমকী ও তার সহযোগী সোহাগী তাদের বাড়িতে গিয়ে ৫ হাজার টাকা দাবী করে। এসময় ওই বাড়িতে কোন পুরুষ সদস্য না থাকায় বাড়ির নারীরা দুই হিজড়াকে ৪ শত টাকা দিয়ে বিদায করার চেষ্টা করে।

কিন্তু ওই দুই হিজড়া তাদের দাবীকৃত ৫ হাজার টাকার জন্য অনড় থাকে। এক পর্যাযে হিজড়া চুমকী নিজের শরীরে আগুন লাগিয়ে ভয় দেখিয়ে টাকা আদায় করার চেষ্টার সময় হিজড়া চুমকী

দগ্ধ হয়। এসময় বাড়ি মহিলা ও পরে মসজিদ থেকে পুরুষরা এসে দগ্ধ হিজড়া চুমকীকে সেবা সুস্থতা শেষে চিকিৎসার জন্য ১৫ শত টাকা দিলে তারা চলে যায়।

এব্যাপারে সেনবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোঃ ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন জানান, হিজড়ারা নিজেদের শরীরে আগুন লাগিয়ে ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়ের জন্য। এঘটনাটি তদান্তাধিন রয়েছে। তদন্ত শেষে আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.