কুড়িগ্রামের রৌমারীতে মা ও শিশুকে গলা কেটে হত্যার ঘটনায় ২ আসামীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ

২৬

কুড়িগ্রামের রৌমারীতে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে মা ও শিশুকে গলা কেটে হত্যা মামলায় মূল অভিযুক্তসহ ২ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১৪।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, নিহত হাফসা আক্তার হারেনার উকিল বাবা ও উপজেলার শৌলমারী ইউনিয়নের ওকড়াকান্দা গ্রামের জাকির হোসেন ওরফে জফিয়াল (২৮) ও নিহতের দেবর একই এলাকার চাঁন মিয়া (৪৩)।

বুধবার (২৫ মে) দুপুরের দিকে রৌমারী অফিসার্স ক্লাবে এক প্রেস ব্রিফিংয়ের এসব তথ্য জানান জামালপুর র‌্যাব-১৪। র‌্যাব-১৪ জামালপুরের কোম্পানি কমান্ডর স্কোয়াড্রন লিডার আশিক উজ্জামান

জানান, জামালপুরের বকশীগঞ্জে অভিযান চালিয়ে আসামী জাকির হোসেন ওরফে জফিয়ালকে আটক হয়। পরে তার দেওয়া তথ্য মতে, রৌমারী উপজেলার শৌলমারী ইউনিয়নের বোয়ালমারী গ্রামের এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে এ হত্যাকান্ডের সাথে সম্পৃক্ত নিহত হারেনার দেবর চাঁন মিয়াকে আটক করা হয়।

উল্লেখ্য গত ২১ মে কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার সদর ইউনিয়নের নতুনবন্দর নামক এলাকায় বাবার বাড়ির পাশের ধান ক্ষেতে পাঁচ মাস বয়সের শিশু সন্তান হাবিবের গলাকাটা মরদেহ ও মা

হাফসা আক্তার হারেনাকে গলা কাটা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পরে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মা হাফসার মৃত্যু হয়। এঘটনায় নিহত হাফসার বাবা বাদি হয়ে রৌমারী থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এ বিষয়ে রৌমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোন্তাছের বিল্লাহ জানান, মা ও ছেলেকে গলাকেটে হত্যাকান্ডের সাথে জরিত দুইজন আসামীকে হস্তান্তর করেন র‍্যাব-১৪ সিপিসি-১ জামালপুর। আসামী দুইজনকে কুড়িগ্রাম জেল হাজতে পাঠানো হবে।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.