সুনামগঞ্জে গৃহবধুকে হত্যার ঘটনায় নারীসহ গ্রেফতার ৩

মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া- সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

২৭

:সুনামগঞ্জে ধারালো ছুরি দিয়ে এক গৃহবধুকে হত্যা করার ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে নারীসহ ৩জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিরা হলেন- জেলার তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের জৈতাপুর গ্রামের মৃত নজির হোসেনের ছেলে মোঃ গোলাপ মিয়া (৩৭), একই গ্রামের আকরাম আলীর মোঃ সোহাগ মিয়া (২৫) ও আমির হোসেনের স্ত্রী হেলেনা বেগম (৪৫)। আজ শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) সকাল ৫টায় জৈতাপুর গ্রাম থেকে ৩জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

র‌্যাব ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে- গত মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) রাত অনুমান ১২টায় জেলার তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের জৈতাপুর গ্রামের শাহানুর মিয়ার স্ত্রী গৃহবধু আজমিনা বেগম (২৫) তার নিজবসত বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়ে যায়। এঘটনাটি তাৎক্ষনিক ভাবে জানাজানি হওয়ার পর ওই গৃহবধুর আত্মীয়-স্বজনরা চারদিকে খোঁজখুজি শুরু করে।

অনেক খোঁজাখুজির পরদিন গত বুধবার (২১ এপ্রিল) সকাল ৭টায় বসতবাড়ির পাশে ঝোপের মাঝে ক্ষতবিক্ষত অবস্থায় গৃহবধু আজমিনা বেগমের লাশ দেখতে পায় স্থানীয়রা। পরে থানায় খবর দিলে দুপুরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ওই গৃহবধুর লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। কিন্তু গৃহবধু আজমিনা বেগমকে কে বা কারা হত্যা করেছে তা জানা যায়নি। তবে ওই গৃহবধুর শরীরের ধারালো ছুরি আঘাত পাওয়া গেছে।
এঘটনার প্রেক্ষিতে ওইদিন রাতেই নিহত গৃহবধু আজমিনা বেগমের বাবা মোঃ আব্দুল্লাহ বাদী অজ্ঞাত আসামী দিয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে র‌্যাব ৯ এর সুনামগঞ্জ ক্যাম্পের উপ-পরিচালক সি ন আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন- প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফকৃত ৩জন আসামী গৃহবধু আজমিনা বেগমের হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। তাদের আজ শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) দুপুরে তাহিরপুর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

 

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.