কুড়িগ্রামে কাজ শেষ হবার আগেই ভেঙে পড়ছে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ

২৬

কুড়িগ্রামের রৌমারীতে মুজিববর্ষের উপহার আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর নির্মাণ কাজ শেষ হবার আগেই ভেঙে পড়েছে ৪টি ঘর। রোববার ভোরে উপজেলার দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের হরিণধরা (বগারচর) নামক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে কাজ করার অভিযোগ স্থানীয়দের।

রৌমারী উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস সূত্রে জানা যায়, মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে “ভূমিহীন ও গৃহহীনদের পুনর্বাসন প্রকল্প (আশ্রয়ণ প্রকল্প-২) এর আওতায় দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নে ৩৫টি পরিবারকে এ সুবিধার আওতায় আনা হয়েছে।

১ম ধাপে ৯টি ঘর দেওয়া হয়েছে। প্রতিটি গৃহ নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে এক লাখ ৭১ হাজার টাকা এবং ২য় ধাপে ২৬টি ঘর দেওয়া হয়েছে। যার প্রতিটি গৃহ নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে এক লাখ ৯০ হাজার টাকা। ইতিমধ্যে ৯টি গৃহ নির্মাণ শেষে সুবিধাভোগীদের মাঝে চাবি হস্তান্তর করা হয়েছে।

বাকিগুলোর কাজ চলমান রয়েছে। উপজেলা প্রশাসন সরাসরি এ নির্মাণ কাজের তত্ত্বাবধান করছে।
সুবিধাভোগী শাহাজামাল বলেন,নিচু জায়গায় এবং বালু মাটিতে ঘরগুলো নির্মাণ করা হয়েছে।

ঘরের ফাউন্ডেশন না থাকায় নিচের মাটি ধসে গিয়ে ৪টি ঘর ভেঙে পড়েছে। নাম মাত্র বালু ভরাট করে সাথে সাথে কাজ করায় এমনটি হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

সুবিধাভোগী ফুলো রানী বলেন, বালু ও মাটি ভরাট করেই ঘর নির্মাণ শুরু করেছে। মাটি শক্ত হবার পূর্বে কোন প্রকার ভিত ছাড়াই ঘর তোলার কারণে সামান্য বৃষ্টিতেই ঘরের নিচের মাটি ধসে গেছে।

এতে করে ঘর গুলেঅ ভেঙে পড়েছে। এভাবে ঘর ভেঙে পড়লে আমরা যাবো কই? থাকবো কই। সঠিকভাবে প্লান করে ঘর গুলো তোলার দরকার ছিল।

রৌমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল ইমরান বলেন, যে ঘরগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তা মেরামত করে দেওয়া হচ্ছে। ইতিমধ্যে কাজ শুরু করা হয়েছে। মুলত মাটির কারণে এসব হয়েছে।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.