ঝিনাইগাতীতে আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে প্রতিপক্ষের জমি দখলের অভিযোগ।

শেরপুর প্রতিনিধি :

৬১

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে প্রতিপক্ষের জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটে উপজেলার পাইকুড়া গ্রামে।

এ অভিযোগ মামলার বাদী ভুক্তভগী ঝিনাইগাতী সদর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড মেম্বার মো. আসাদুজ্জামান ( আসাদ আলী এর)। আসাদ আলী পাইকুড়া গ্রামের মৃত রইচ উদ্দিনের ছেলে।

বাদীর আদালতে দায়ের করা পিটিশন মোকদ্দমা নং-১৮৮/২০২১, তারিখ- ৩১/০৫/২০২১ইং মোতাবেক জানা যায়, গত ০৬/০২/১৯৬৩ইং তারিখের ১২১৮ নং সাফকবলা দলিলমুলে হালদাগ নং- ১২৯,১৩০,১৩১ ও ১৩৩ থেকে মোট সাড়ে

চৌদ্দ শতাংশ জমি পরেশ কর্মকারের ছেলে মো. ইয়ারু কর্মকারের কাছ থেকে মৃত মইন উদ্দিনের ছেলে রইচ উদ্দিন ক্রয় করে ভোগদখল করে। রইচ উদ্দিনের মৃত্যুে পর তার ছেলে মেয়েরা উক্ত জমি ভোগদখল করে আসছেন।

এমতাবস্থা গত ৩০/০৫/২০২১ ইং তারিখে মৃত ইয়ারু কর্মকারের
ছেলে আবুল হক ও তার ছেলে আফছর আলী, ফকির আলী, আছ ফকির এবং তাদের পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা পৈত্রিক সম্পদ দাবী করে জোরপূর্বক জবর দখল করে ঘর নিমানের উদ্যোগ নিলে মৃত রইচ উদ্দিনের ছেলে ও ইউপি

সদস্য আসাদ আলী তাদেরকে বাঁধা দিতে গেলে আবুল হকের ছেলে ফকির আলীর নেতৃত্বে রাম দা, ফালা, লাঠি, হলঙ্গা ইত্যাদি দিয়ে সজ্জিত হয়ে আক্রমন করতে আসে।

প্রাণ ভয়ে আসাদ আলী ও তার পরিবারের লোকজন সরে গেলে নালিশি ভুমির সাড়ে ১৪ শতক জমি আবুল হক গং বেদখল করে ঘর নিমানের উদ্যোগ নিলে আসাদের পরিবার তাদেরকে বাধা দিতে ব্যর্থ হয়ে ৩১মে/২১ তারিখে

শেরপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে উভয় পক্ষের শান্তি শৃংক্ষলা রক্ষার্থে মৃত রইচ উদ্দিনের ছেলে আসাদুজ্জামান আসাদ বাদী হয়ে ১৪৪ ধারা জারির আবেদন করেন।

আদালত আবেদনটি আমলে নিয়ে ১৪৪ ধারা জারির আদেশ প্রদান করেন এবং সহকারী কমিশনার ( ভুমি) ঝিনাইগাতীকে ২০ কার্যদিবসের মধ্যে নালিশী ভুমির দখল বিষয়ে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল এবং ঝিনাইগাতী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)কে পক্ষদ্বয়ের মধ্যে শান্তি রক্ষার্থে নির্দেশ দেন।

বাদী আসাদুজ্জামান আসাদের অভিযোগ, এই আদেশপত্র ওসি, ঝিনাইগাতীর হাতে পাওয়ার পরেও তিনি প্রয়োজনীয় কোন উদ্যোগ নিচ্ছেনা।

প্রতিকারের জন্য উপজেলা চেয়ারম্যান, স্থানীয় সংসদ সদস্যকে জানালেও কার্যকর হচ্ছেনা ১৪৪ ধারা। এ সুযোগে বিবাদীরা তর্কিত জমিতে ঘর উত্তোলন অব্যাহ রেখেছেন।

ফলে যে কোন সময় ঘটতে পারে বড় ধরণের দুর্ঘটনা।এ ব্যাপারে ঝিনাইগাতী থানার ওসি মোহাম্মদ ফায়েজুর রহমান ১৪৪ধারা আদেশ পত্রটি হাতে পেয়েছি, সেই সাথে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছি বলে জানান।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.