শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে ইউপি সদস্যে হাতে চেয়ারম্যান লাঞ্চিত।

মোহাম্মদ দুদু মল্লিক শেরপুর প্রতিনিধি।

১৮৪

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে অভ্যান্তরীণ দ্বন্দ্বের জের ধরে ইউপি সদস্যের হাতে কাংশা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জহুরুল হক লাঞ্চিত হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটে গত ১৫জুন মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার কাংশা ইউনিয়নের বাঁকাকুড়া বাজারে। জানা গেছে ,

ইউপি চেয়ারম্যান জহুরুল হক দুপুরে নিজ বাড়ি হতে মোটরসাইকেল করে ঝিনাইগাতী উপজেলা সদরে আসার পথে বাঁকাকুড়া বাজারে পৌছালে ৮নং ওয়ার্ড মেম্বার জাহাঙ্গীর আলম মিষ্টার অতর্কিতভাবে লোহার রড দিয়ে তার উপর আক্রমন চালায়।

এতে করে চেয়ারম্যান জহুরুল হকের বামহাতে ও ঘাড়ে আঘাতপ্রাপ্ত হয় বলে জানা গেছে। পরে ঝিনাইগাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন বলে জানা যায়।

এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান জহুরুল হক নিজে বাদী হয়ে ঝিনাইগাতী থানায় একটি সাধারন ডায়েরি করেছেন। উল্লেখিত বিষয় দীর্ঘদিনের ইউনিয়ন পরিষদের চলমান কর্মকান্ডে জের হিসেবে অভ্যান্তরীন দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়।

৮ নং ওয়ার্ড মেম্বার জাহাঙ্গীর আলম মিষ্টার বলেন , ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জহুরুল হক, চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে ইউনিয়ন পরিষদের উন্নয়নমুলক সকল কর্মকান্ড সদস্যদের না দিয়ে তিনি নিজে একাই বাস্তবায়ন করে আসছেন।

এ সব বিষয় নিয়ে চেয়ারম্যান জহুরুল হক সাহেবের সাথে আমার কথাকাটাকাটি হয়েছে। তার উপর আমি কোন আক্রমন করিনি।

এ ব্যাপারে কাংশা ইউপি চেয়ারম্যান জহুরুল হকের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি সাংবাদিকদের সাথে এসব ব্যপারে কথা বলতে রাজি হয়নি।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.