৯০দিনে পানি সমস্যা সমাধান হবে বিদ্যুৎ বিল দিতে হবে.মেয়র এড. জাহাঙ্গীর আলম

টঙ্গী (গাজীপুর) প্রতিনিধি :

১৩

মো: বশির আলম,  গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন অ ল-১ আওতাধীন ৫৪নং ওয়ার্ডে দীর্ঘদিন যাবত ওয়াসার পানি তীব্র সংঙ্কটে জনজীবন অতিষ্ঠ ছিল।

জনজীবনে দুর্বিশ্ব ভোগান্তির বিষয় টঙ্গীতে পানির জন্য হাহাকার অবৈধ গভীর নলকূপ স্থাপনের হিরিক শিরোনামে দৈনিক খবরপত্র পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়।

পরবর্তীতে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হলে বিষয়টি গাজীপুরের জননন্দিত মেয়র আলহাজ¦ এ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলমের দৃষ্টিগোচর হলে ৫৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নাসির উদ্দিন মোল্লাকে ও অ ল-১ এর সকল

কর্মকর্তাদের নির্দেশ প্রদান করেন দ্রুত পানি সমস্যা সমাধানে কাজ করার জন্য। তারই ধারাবাহিকতায় গতকাল রোববার বেঙ্গীর বাড়ি হোসেন আলী মোক্তার গভীর নলকূপের উদ্বোধন ঘোষণা করা হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে ৫৪ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি সারোয়ার আলম রিপনের স ালনায় ও কাউন্সিলর নাসির উদ্দিন মোল্লার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ্যাডভোকেট

জাহাঙ্গীর আলম। বিশেষ অতিথি রফিকুল ইসলাম কুতোয়ান, সাবেক মেয়র সাহেদপুর পৌরসভা, কাউন্সিলর মাওলানা মনঞ্জুরুল হোসাইন, প্রধান নির্বাহী প্রকৌশলী এস এম সোহরাব, নির্বাহী প্রকৌশলী (পানি শাখা) আনিসুর রহমান,

সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর কেয়া শারমিন, যুবলীগ নেতা বিল্লাল হোসেন মোল্লা, মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার, টঙ্গী কলেজিয়েট স্কুলের পরিচালক আকাশ মো: আক্কাস, কিন্ডারগার্ডেন এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মো: শওকত

হোসেন, শান্তিশৃঙ্খলা কমিটির সভাপতি ফজলুল হক, যুবলীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান, আক্তার সরকার, নাহিদ প্রমুখ। এ সময় প্রধান অতিথি মেয়র জাহাঙ্গীর আলম বলেন, গাজীপুর সিটির উন্নয়নে ২১ হাজার কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে।

প্রাথমিক ভাবে রাস্তা, ড্রেনেজ ব্যবস্থা উন্নয়নের কাজ করে যাচ্ছি। পর্যায়ক্রমে প্রতিটি থানায় একটি আধুনিক হসপিটাল নির্মাণ করা হবে। রাস্তার ড্রেনেজ ব্যবস্থা টঙ্গীতে বিশেষ করে সাবেক পৌরসভার সময় নির্ধারিত প্লান বহিভূত বাড়িঘর নির্মাণের কারণে রাস্তার টেন্ডার পক্রিয়ায় সমস্যা সৃষ্টি হয়।

জনগণ সার্বিক সহযোগিতা করলে দ্রুত উন্নয়ন করা সম্ভব হবে। পানির যে ভোগান্তি গ্রাহক বিদ্যুৎ বিলের টাকা পরিশোধ করেন না। শুধু পানি শাখায় প্রতি মাসে ১ কোটি ২০ লক্ষ টাকা বিদ্যুৎ বিল আসে। সেখানে বিপরীতে বৈধ পানি গ্রাহকদের বিল আদায় হয় ৯৮ লক্ষ টাকা।

আপনারা নিয়মিত বৈধ গ্রাহক হয়ে পানির বিল পরিশোধ করবেন। আমি কথা দিলাম আগামী ৯০ দিনের মধ্যে এই ওয়ার্ডে পানির সমস্যা সমাধান সংশ্লিষ্ট কর্মর্তাদের সমাধানের ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ প্রদান করবো।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.