ফসলরক্ষা বাঁধ নির্ধারিত তারিখে সম্পন্ন করায় হাওরবাসী খুশি , কৃষকের চোখে মুখে হাসি

সৈয়দ সময় , নেত্রকোনা :

৪৯

প্রণেশ সরকার. বন্যার আগাম প্রস্তুতি রোধে কার্যক্রম বাস্তবায়ন হলে নদী ভাঙ্গন , প্লাবন ও ফসল নষ্ট হওয়ার ভয়াবহতা সহনীয় পর্যায়ে আসবে। ২০২১ – ২২ ইং অর্থ বছরে নেত্রকোনা জেলার বিভিন্ন

উপজেলায় বেড়ি বাঁধের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। জেলায় ১৭০ পিআইসির মধ্যে ৩১ কোটি ১২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে সংস্কারের কার্যক্রম চলছে।

এ বছরের বেড়ি বাঁধের কাজ শুরু হয় গত বছরের ১৫ ডিসেম্বর এবং শেষ হয় চলতি বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারী। পানি উন্নয়ন বোর্ড গত বছরের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধের সংস্কার ও নতুন প্রকল্পের কাজ করছে।

প্রতি বছরের ন্যায় এ সব প্রকল্পের কাজ সমাপ্ত হলে জেলার হাওরাঞ্চলে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ আগামীতে বন্যার হাত থেকে অনেকাংশে রক্ষা পাবে।

২০২১ – ২২ অর্থ বছরে কাবিখা কর্মসূচীর আওতায় জেলার খালিয়াজুড়ি উপজেলার অন্তর্ভুক্ত ৪ নং নগর ইউনিয়নাধীন খালিয়াজুড়ি এফ সি ডি প্রকল্প পোল্ডার – ৩ এর কিমি. ২২.৩৫০ হইতে কিমি.

২২.৭৫০ এবং কিমি. ২৩.৮০০ হইতে কিমি. ২৪.২৮০ পর্যন্ত মোট ০.৮৭৫ মিটার ডুবন্ত বাঁধ এর ব্রীচ ক্লোজিং ও পুনরাকৃতিকরণ কাজের সভাপতি প্রাণেশ সরকার জানান , ২২,৯৮,১৫৩.৯৩ টাকা

ব্যয়ে এই বাঁধ নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই শেষ করেছি। হাওড়ের কৃষক খুব খুশি। এলাকার উন্নয়নে সব সময় হাওড়বাসীর পাশে আছি থাকবো।

সাবেক ইউপি. মেম্বার প্রাণেশ সরকার আরো বলেন , এলাকার উন্নয়নে তিনি সারা জীবন কাজ করে যাবেন। আাশা করি কৃষক ভাইয়েরা এবার আরো বেশি ধান ঘরে তুলতে পারেন।

নেত্রকোনা পানি উন্নয়ন বোর্ড এর নির্বাহী প্রকৌশলী এম. এল. সৈকত জানান , বাঁধ সংস্কারের কাজ শেষ। আশাবাদী হাওড় এলাকার ফসল আগামী বন্যার হাত থেকে রক্ষা পাবে।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.