চিলমারীতে এনজিও’র দেয়া খাবার খেয়ে গ্রামের সবাই অসুস্থ্য

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ

৪৫

কুড়িগ্রামের চিলমারীতে এনজিও’র দেয়া খাবার খেয়ে এক গ্রামের ৩০-৩৫ জন অসুস্থ্য হওয়ার অভিযোগ উঠেছে।
সোমবার আরডিআরএস বাংলাদেশ এর সংগ প্রকল্পের চিলমারী শাখার এক কর্মশালায় দেয়া খাবার খেয়ে ৫শিশুসহ ৩০নারী-পুরুষ অসুস্থ্য হয়।

এদের মধ্যে গুরুত্বর অসুস্থ্য ২শিশুকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জানা গেছে,আরডিআরএস বাংলাদেশ এর চিলমারী শাখায় সংযুক্ত টেকসই পুষ্টি সুবিধা প্রদান কল্পে পরিচালিত সংগ প্রকল্প কর্তৃক নিয়মিতভাবে অনুষ্ঠিত এনএসএ মিটিং ও উৎপাদক দলের মিটিংয়ে সকালের নাস্তা এবং দুপুরের খাবার প্রদান করে থাকে।

এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার মুদাফৎথানা এলাকার মাহমুদা বেগমের বাড়ীতে উৎপাদক দলের মিটিং অনুষ্ঠিত হয়। যথানিয়মে ওই মিটিংয়ে উপস্থিত ২৫-৩০সদস্যের মাঝে সকালের নাস্তা ও দুপুরের খাবারের প্যাকেট পরিবেশন করা হয়।

মিটিংয়ে দেয়া ওইসব প্যাকেটের খাবার খেয়ে ১৫-১৬জন সদস্য ও তাদের পরিবারের সদস্য মিলে অন্তঃত ৩০জন নারী-পুরুষ ও শিশু অসুস্থ্য হয়ে পড়ার অভিযোগ উঠেছে। এর মধ্যে গুরুত্বর অসুস্থ্য কুলছুম ও আয়শা নামের ২শিশুকে হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

সরেজমিনে মঙ্গলবার মুদাফৎথানা মধ্য সরকারপাড়া এলাকায় গেলে দেখা যায় ওই গ্রামের প্রতি ঘরে অসুস্থ্য রোগী। এসময় সংগ প্রকল্পের সদস্য ফেরদৌসী বেগমের মেয়ে আইরিন পারভীন(১৯),পঞ্চু ব্যাপারী(৭২), অহমুদ্দিন(৭৫)সহ অনেকে জানান,

তাদের পরিবারের লোকজনের মিটিং থেকে নিয়ে আসা খাবার খেয়ে একটু পরই তাদের বমি ও পাতলা পায়খানা শুরু হয়। চিকিৎসা নেয়ার পর তারা কেউ কেউ সুস্থ্য হলেও অনেকে এখনও রয়েছেন শয্যাসায়ী।

প্রকল্প সমন্বয়কারী মো.আশরাফুল আলম বলেন,বিষয়টি আমার জানা নেই। আপনার কাছে শুনলাম। খোঁজ নিয়ে যাতে এমন ঘটনা না ঘটে সে বিষয়ে বলা হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো.মাহবুবুর রহমান বলেন, বিষয়টি শুনলাম, ঘটনার পূর্ন তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.