কুড়িগ্রামে সরকারি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা বরখাস্ত

কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ

৪৪

কুড়িগ্রামের উলিপুরে কর্মরত অবস্থায় সরকারি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

গত ২৯ আগষ্ট যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো: আজহারুল ইসলাম খান ও উপ-পরিচালক (প্রশাসন) মো: মোখলেছুর রহমান স্বাক্ষরিত্র এক পত্রে এ অফিস আদেশ জারী করা হয়।

যা মন্ত্রনালয়ের ওয়েবসাইটে ১ সেপ্টেম্বর প্রকাশ করা হয়। মহাপরিচালকের অফিস আদেশ সূত্রে জানা গেছে, উলিপুর উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান (সদ্য বদলীকৃত বর্তমানে চিলমারী উপজেলায় কর্মরত) দায়িত্বে

থাকাকালীন সময়ে বিভিন্ন ঋন কর্মসূচির ৪৭ লাখ ৫২ হাজার ৬৭৪ টাকা চেকের মাধ্যমে ব্যাংক হতে উত্তোলন করেন। এছাড়া উপজেলা কার্যালয়ের অনুকূলে ২০১৯-২০২০ এবং ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে বাজেটের বরাদ্দকৃত টাকা উত্তোলন

পূর্বক যথাযথ খাতে ব্যয় না করে ২ লাখ ৭৪ হাজার ২শ টাকাসহ সর্বমোট ৫১ লাখ ২৬ হাজার ৮৭৪ টাকা আত্মসাথের বিষয়টি উদঘাটিত হয়।

অফিস আদেশ সূত্রে আরও জানা গেছে, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান সরকারি কর্মচারী (শৃংখলা ও আপিল) বিধিমালা ২০১৮ এর ৩ (খ) ও ৩ (ঘ) অনুযায়ী অসদাচরন ও দুর্নীতির মাধ্যমে শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন।

তাই ওই কর্মকর্তাকে বিধিমালা ২০১৮ এর ১২ বিধি অনুযায়ী ভূতাপেক্ষভাবে চাকুরী হতে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

সদ্য বদলীকৃত উলিপুর উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান বলেন, তার বিরুদ্ধে উলিপুর দায়িত্বে থাকাকালীন সরকারি টাকা আত্মসাথের অভিযোগ সত্য নয়। তিনি সাময়িক বরখাস্তের বিষয়টি শুনেছেন।

তবে তিনি বলেন, দ্রুতই উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের কাছে বিষয়টি যে সত্য নয়, তা তিনি প্রমান করতে সক্ষম হবেন।
এ বিষয়ে উলিপুর (অতিরিক্ত দায়িত্ব) উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহবুবুর রহমান জানান,

উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্তে বিষয়ে তিনি এখনো কোন চিঠি পাননি।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.