কুড়িগ্রামে রাতারাতি জায়গা দখল করে অবৈধভাবে বাড়িঘর নির্মাণের অভিযোগ

কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ

৪২

কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলায় রাতারাতি বাড়ি ভিটার জায়গা বেআইনি ভাবে দখল করে পাকা ঘর নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

উপজেলার উমর মজিদ ইউনিয়নের পান্তাপাড়া গ্রামের খায়রুল ইসলামের ক্রয়কৃত বসতবাড়ির জায়গা দখল করে ঘর নির্মাণ করার অভিযোগ আব্দুস সালাম, আতাউর রহমান, আশিকুর রহমান

রাসেল ও আখলাকুর রহমান রিয়েলের বিরুদ্ধে। অভিযুক্তরা সবাই ওই গ্রামেরই বাসিন্দা।সোমবার (২২ নভেম্বর) সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ভূক্তভোগী খায়রুল ইসলামের ক্রয়কৃত বাড়ি ভিটার

একাংশ জোপূর্বক গাছপালা কেটে রাতের আঁধারে ঘর নির্মাণ করছে অভিযুক্তরা। তবে বাড়ি ভিটা সংক্রান্ত একটি মামলা বিজ্ঞ আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। এ বিষয়ে ভূক্তভোগী খায়রুল ইসলাম

বলেন, আসামীরা আমার ক্রয়কৃত বৈধ জমি জোরপূর্বক দখল করে পাকা ঘর নির্মাণ করছে। এ মর্মে কোর্টে একটি মামলা দায়ের করেছি। বিজ্ঞ আদালত কেন বিবাদীরা জোরপূর্বক ঘর নির্মাণ

করছে এ মর্মে ৩ কার্যদিবসের মধ্যে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিলেও তারা এর কোন সদুত্তোর না দিয়ে আদালতকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে রাতারাতি পাকা ঘর নির্মাণ করছে। নির্মাণকালীন সময়ে রাজারহাট থানায় অভিযোগ করেও প্রতিকার পাইনি। পুলিশ উল্টো আমাকে হুমকি দিয়েছে।

অভিযুক্ত আব্দুস সালাম বলেন, খায়রুল সাহেব দিক উল্লেখ না করে জমি ক্রয় করে এখন মনগড়া জায়গায় জমি দাবি করছে। এলাকাবাসী বিচার সালিশে রেজুলেশনের মাধ্যমে মিমাংসা করলেও

তিনি সমাধান মানেননি। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপ পরিদর্শন (এসআই) আব্দুল জব্বার জানান, বসতভিটা দখলকে কেন্দ্র করে বাদী খায়রুল ইসলাম পুলিশের উর্দ্ধতনকে ফোন দিয়ে বার বার

রাজারহাট থানা পুলিশকে হয়রানি করছে। আমরা স্পষ্ট করে বলেছি পাকা ঘর কর করুক কিংবা কাচা ঘর করুক আপনি রায় পেলে তখন পুলিশ আপনার পক্ষে কাজ করবে। এ ব্যাপারে রাজারহাট

থানার পুলিশের ভারপ্রাপ্ত (ওসি) রাজু সরকার জানান, আদালতে বিচারাধীন মামলার রায় যার পক্ষে যাবে আমরা নিরপেক্ষভাবে তার হয়ে কাজ করব। তাছাড়া আমরা উভয়পক্ষকে আপোষ-মিমাংসার জন্য থানায় ডেকেছি। আশা করি খুব শীঘ্রই এর সমাধান হবে।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.